Budget 2020 Delhi - WEBMULTICHANNEL

Header Ads

Budget 2020 Delhi



নতুন দিল্লি, ১ ফেব্রুয়ারি: আজ সংসদে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন (Nirmala Sitharaman) ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেট (Union Budget 2020-21) পেশ করলেন। গত বছরের মে মাসে কেন্দ্রে দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় আসে নরেন্দ্র মোদি সরকার। তার পরে এই প্রথম পূর্ণ বাজেট পেশ করা হবে। সকাল ১১টায় লোকসভায় সাধারণ বাজেট পেশ করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী।

Union Budget 2020-21 Live News Updates:

একনজরে নির্মলা সীতারমনের ভাষণ:

চিকিৎসা সরঞ্জাম আমদানিতে নামমাত্র স্বাস্থ্য সেস চাপানোর প্রস্তাব করছি
জিএসটি-তে আরও সংস্কার আনা হবে। এর আওতায় আয়কর জমা দেওয়া আরও সহজ হবে।
আমরা নতুন একটি প্রক্রিয়া চালু করব, যাতে করদাতা আবেদনের সঙ্গে সঙ্গে আধার ও প্যান কার্ড পেতে পারেন।
করদাতাদের জন্য একটি চার্টার তৈরি করা হবে। করদাতাদের অধিকার লিপিবদ্ধ করা হবে। সিবিডিটি তা নথিবন্ধ করবে।
পুরনো হারে আয়করে ছাড়ের সুবিধা। তবে নতুন হারে কর দিলে মিলবে না আয়কর ছাড়ের সুবিধা। তবে করদাতা বেছে নিতে পারবেন তিনি নতুন হারে আয়কর দেবেন না পুরনো হারেই কর দেবেন।
৫ লাখ থেকে ৭.৫ লাখ আয়ে ১০ শতাংশ কর
৭.৫ লাখ থেকে ১০ লাখ আয়ে কর কমে ১৫ শতাংশ
১০-১২.৫ লাখ আয়ে কর কমে ২০ শতাংশ

১২.৫-১৫ লাখ আয়ে কর কমে ২৫ শতাংশ
 ১৫ লাখ টাকা আয়ের ঊর্ধ্বে আবার অপরিবর্তিত রইল আয়করের হার। আয়করের হার ৩০ শতাংশ
বাড়ল কর ছাড়ের উর্ধ্বসীমা, ৫ লাখ পর্যন্ত আয়কর নয়, বাজেটে ঘোষণা অর্থমন্ত্রীর

আয়কর আরও সহজ করা হবে।
আগামী অর্থবর্ষে ২২ লক্ষ ৪৬ কোটি টাকা আয়ের লক্ষ্যমাত্রা।
আর্থিক বৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ১০ শতাংশ।
এলআইসি-র অংশীদারিত্ব বিক্রি করবে সরকার। আইডিবিআই ব্যাঙ্কেও নিজেদের শেয়ার বিক্রি করবে সরকার।
করদাতাদের চার্টার তৈরি করা হবে। পেনশনের জন্য নতুন ট্রাস্ট গঠনের সিদ্ধান্ত।
ব্যাঙ্কগুলিকে চাঙ্গা করতে ৩ লক্ষ ৫০ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ।
ব্যাঙ্ক গ্যারান্টি ১ লক্ষ থেকে বেড়ে দাঁড়াল ৫ লক্ষ টাকা। ব্যাঙ্ক বন্ধ হলে ৫ লক্ষ টাকা বিমার সুবিধা। বিমা হিসাবে সেই টাকা পাবেন গ্রাহকেরা।
জম্মু ও কাশ্মীরের জন্য ৩০ হাজার ৭৭০ কোটি টাকা বরাদ্দ। লাদাখে উন্নয়নে ৫ হাজার ৯০০ কোটি টাকা বরাদ্দ।
পরিবেশকে স্বচ্ছ রাখতে ৪ হাজার ৪০০ কোটি টাকা বরাদ্দ।
হরিয়ানা, তামিলনাড়ু, অসম, গুজরাত ও উত্তরপ্রদেশে প্রত্নতাত্ত্বিক সংগ্রহশালা গড়ে তোলা হবে। ঝাড়খণ্ডে আদিবাসী মিউজিয়াম গড়ে তোলা হবে।
কলকাতায় জাতীয় মিউজিয়ামের সংস্কার করা হবে। সে জন্য বাড়তি বরাদ্দ করা হয়েছে। সেই সঙ্গে দেশের আরও ৪টি সংগ্রহালয়েরও সংস্কার হবে।
মহিলাদের উন্নয়নে ২৮ হাজার ৬০০ কোটি টাকা বরাদ্দ। জনজাতিদের উন্নয়নে ৫৩ হাজার কোটি টাকা।
পরিবহণ পরিকাঠামোয় ১.৭ লক্ষ কোটি টাকা বরাদ্দ।
২০১৩-এর মধ্যে দিল্লি-মুম্বই এক্সপ্রেস হাইওয়ে। আমেদাবাদ-বেঙ্গালুরু নতুন রেল প্রকল্প।
নির্মলা সীতারামনের বাজেট ভাষণের মধ্যেই বিরোধীদের হই-হট্টগোল। থামাতে হল স্পিকারকে।
৬ লাখের উপর অঙ্গনওয়াড়ি কর্মীর হাতে এখন স্মার্টফোন। যার মাধ্যমে ১০ কোটির উপর পরিবারের পুষ্টির কী অবস্থা, তা রেকর্ড রাখা সম্ভব হয়েছে।
বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও' প্রকল্পে ব্যাপক সাফল্য মিলেছে। দেশজুড়ে সর্বস্তরের শিক্ষায় এখন ছেলেদের থেকে মেয়েদের নথিভুক্তকরণের হার বেশি।
আমরা ৩ বছরের মধ্যে প্রি-পেড স্মার্ট মিটার প্রতিটি বাড়িতে নিয়ে আসতে চাই। উপভোক্তা কার কাছে বিদ্য়ুৎ কিনবেন, তা বেছে নিতে পারবেন। এর জন্য ২২ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ।
প্রতিটি জেলায় রফতানি হাব তৈরির লক্ষ্য। রফতানির জন্য ঋণের ব্যবস্থা করা হবে।
আরও ৬ হাজার কিলোমিটার জাতীয় সড়ক তৈরি করা হবে ২০২৪-এর মধ্যে।
অপটিক্যাল ফাইবার প্রোগ্রামের মাধ্যমে সংযুক্ত করা হবে ১ লাখ গ্রাম পঞ্চায়েতকে।
দেশজুড়ে ডেটা সেন্টার পার্ক গড়ে তোলার জন্য নয়া নীতি আনবে সরকার।
কোয়ান্টাম প্রযুক্তি ক্ষেত্রে ৮ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব।
পুনর্নবীকরণ শক্তির জন্য বরাদ্দ ২০ হাজার কোটি।
২০৩০ সালের মধ্যে জনসংখ্যার নিরিখে বিশ্বের বৃহত্তম কর্মক্ষেত্র তৈরি হবে ভারতে।
২০২৪ সালের মধ্যে দেশের ১০০টি বিমানবন্দরকে আরও উন্নত করে তোলা হবে।
২০২৩ সালের মধ্যে সম্পন্ন হবে দিল্লি-মুম্বই হাইওয়ের কাজ।
রেল লাইনের দুই পাশে সোলার প্যানেল বসানোর প্রস্তাব।
তেজসের মতো আরও ট্রেন চালু করার ভাবনা।
শিল্প ও বাণিজ্য ক্ষেত্রে বরাদ্দ ২৭ হাজার ৩০০ কোটি।
২০২৫ সালের মধ্যে দেশ থেকে যক্ষা দূরীকরণে সরকার চালু করছে অ্যান্টি টিবি ক্যাম্পেইন (Anti-TB campaign)।
সাধারণ মানুষের স্বার্থে দেশের সব জেলায় আরও বেশি করে খোলা হবে জন ওষুধি কেন্দ্র।
ভারতকে উচ্চশিক্ষার গন্তব্য করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে এশিয়া ও আফ্রিকার পড়ুয়াদের জন্য সূচনা 'Ind-SAT' পরীক্ষার।
দেশে ১৫০টি নয়া ডিপ্লোমা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।
বৃত্তিমূলক শিক্ষায় বরাদ্দ ৩০০ কোটি।
অনলাইনেই এবার ডিগ্রি স্তরের সম্পূর্ণ পাঠক্রম। পাঠ দেবে দেশের ১০০টি উচ্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।
শিক্ষা ক্ষেত্রে প্রত্যক্ষ বিদেশি বিনিয়োগের জন্য শীঘ্রই নতুন শিক্ষানীতি তৈরি করা হবে। চাকরিভিত্তিক শিক্ষায় জোর দেওয়া হবে।
শিক্ষাখাতে বরাদ্দ ৯৯ হাজার ৩০০ কোটি টাকা।
জাতীয় ফরেন্সিক বিশ্ববিদ্যালয় এবং জাতীয় পুলিশ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রস্তাব রাখছি।
গ্রামীণ ভারতের ঘরে ঘরে বিশুদ্ধ পানীয় জল পৌঁছে দিতে জল জীবন যোজনায় বরাদ্দ ৩.৬ লাখ কোটি টাকা।
স্বচ্ছ ভারত মিশনে বরাদ্দ ১২ হাজার ৩০০ কোটি টাকা।
স্বাস্থ্যক্ষেত্রে বরাদ্দ অতিরিক্ত ৬৯ হাজার কোটি টাকা।
১১২ জেলায় পিপিপি (PPP) মডেলে হাসপাতাল তৈরি করা হবে।
হর্টিকালচারে রেকর্ড উৎপাদন, লক্ষ্য এক জেলায় এক পণ্য, বললেন অর্মন্ত্রী
শুখা ১০০টি জেলায় বিশেষ নজর। সৌরপাম্প বসাতে সাহায্য করবে সরকার। তৈরি করা হবে আরও হিমঘর। এক্ষেত্রে সাহায্য করবে মুদ্রা (MUDRA) ও নাবার্ড (NABARD
কৃষকদের স্বার্থে চালু হবে উড়ান। চালু করবে অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রক
কৃষকদের স্বার্থে চালু হবে নতুন কিষাণ রেল
কৃষকদের উন্নয়নে ১৬ দফা যোজনা
পরিবহন এবং লজিস্টিক ক্ষেত্রে জিএসটি দুর্দান্ত কাজ করেছে। “ইন্সপেক্টর রাজ’ উধাও হয়ে গিয়েছে বলে দাবি করেন তিনি
৬ কোটিরও বেশি কৃষক প্রধানমন্ত্রী ফসল বিমা যোজনায় রয়েছেন
জলের সমস্যা আছে এমন ১০০টি জেলাকে চিহ্নিত করা হয়েছে
১৫ লাখ কৃষককে সৌরচালিত পাম্পসেট দেওয়া হবে, ঘোষণা অর্থমন্ত্রীর
২৮৪ বিলিয়ন বিদেশি পুঁজি এসেছে
দারিদ্র সীমার উপরে এসেছেন বহু মানুষ
এই লক্ষ্যে ১৬ অ্যাকশন পয়েন্ট ঘোষণা করেছেন তিনি। আমরা আমাদের লক্ষ্য ১৬টি নীতির মধ্য দিয়ে জানাচ্ছি
কৃষিপণ্য বিক্রিতে সরকার বিশেষ পদক্ষেপ নিয়েছে
আমরা ২০২২ সালের মধ্যে কৃষকদের আয় দ্বিগুন করতে চাইছি
কাশ্মীরি ভাষায় কবিতা পড়লেন অর্থমন্ত্রী
গরিবের হাতে সরাসরি টাকা পৌঁছায়
স্বাস্থ্য, শিক্ষায় জোর দিয়েছে সরকার
সরকারের খরচ আগের থেকে কমেছে
এর জন্য সংস্কার জরুরি
আমরা প্রযুক্তিগত উদ্যোগের দিকে এগোচ্ছি
আমরা অভূতপূর্ব উন্নয়ন দেখতে পাচ্ছি
সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতা বেড়েছে
১ এপ্রিল থেকে GST-র নতুন আবেদনপত্র
জিএসটি-র কারণে কম কর দিতে হচ্ছে এখন
এখন গড় বৃদ্ধির হার ৭.৪ শতাংশ
আশির দশকে বৃদ্ধি ছিল ৬ শতাংশ
কর দেওয়ার পদ্ধতি আমরা সরল করেছি

জিএসটি চালু হওয়া সাধারণ মানুষের লাভ হয়েছে
২০ শতাংশ দক্ষতা বৃদ্ধি পেয়েছে
৪০ কোটি করদাতার মধ্যে ১৫ লাখ নতুন করদাতা রয়েছে
আমরা চাই কেন্দ্র ও রাজ্য একসঙ্গে কাজ করুক
নারী নিরাপত্তায় বিশেষ জোর দেওয়া হয়েছে
নারীরা যাতে অধিকার বুঝে নিতে পারে
মানুষ আমাদের জনাদেশ দিয়েছেন
সবাইকে নিয়ে উন্নয়নের পথে এগিয়ে যাচ্ছি
শিল্প ও বাণিজ্যেও জোর দিয়েছে সরকার
আর্থিক বৃদ্ধিতে বিশেষ নজর দেওয়া হয়েছে
সবার কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছে মোদি সরকার


No comments

Theme images by 5ugarless. Powered by Blogger.